Logo

সিলেটে ভাড়া মওকুফের দাবিতে ভাড়াটিয়াদের মানববন্ধন

রিপোর্টার:
আপডেট : শনিবার, ৩০ মে, ২০২০

সিলেট প্রতিনিধি

বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসের সংক্রমণের ফলে দুর্বিষহ জীবন-যাপন করছেন ভাড়াটিয়ারা। এ অবস্থায় ছয় মাসের বাড়ি ও দোকান ভাড়া মওকুফের দাবিতে মানববন্ধন করেছেন তারা।

শনিবার দুপুর ১২টার দিকে সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে এই কর্মসূচি পালন করে ভাড়াটিয়া স্বার্থ-সংরক্ষণ পরিষদ, কেন্দ্রীয় কমিটি। দাবি পূরণ না হলে আগামী ৬ জুন অবস্থান কর্মসূচি ও প্রধানমন্ত্রীকে স্মারকলিপি দেওয়ার কথা জানিয়েছেন পরিষদের নেতারাভাড়াটিয়া স্বার্থ-সংরক্ষণ পরিষদের সভাপতি অ্যাডভোকেট এমএ সালেহ চৌধুরী সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেনের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে স্বাগত বক্তব্য দেন সংগঠনের সিলেট জেলার সমন্বয়ক তৌহিদুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন অ্যাডভোকেট মামুন রশীদ, সহকারী অধ্যাপক আবুল হাসান চৌধুরী, ডা. আখতার হোসেন, সংগঠনের সিলেট মহানগরীর আহ্বায়ক শাহজাহান চৌধুরী প্রমুখ

।এই কর্মসূচি চলাকালে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন আব্দুল আউয়াল মিসবাহ, আবু তাহের চৌধুরী, রোটারি ক্লাব অব সিলেট কুশিয়ারার প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি রোটারিয়ান আব্দুর রহমান, মারুফ আহমদ অনিক, আরমান হোসেন, আকবর আলী, শিব্বির আহমদ, ময়নুল ইসলাম, নন্দ লাল বাবু, আতাউর রহমান, আতিকুর রহমান, ফারজানা বকত, কিবরিয়া হোসেন, শফিকুর রহমান, আরিফুল ইসলাম, জাকারিয়া আহমদ মানববন্ধন চলাকালে বক্তারা বলেন, বিশ্বে আজ করোনার মহামারি অবস্থা চলছে। এমন অবস্থায় বাংলাদেশের ভাড়াটিয়া জনগণ এক দুর্বিষহ জীবন যাপন করছেন। বাড়ির মালিকরা ভাড়াটিয়াদের বাড়ি ও দোকান ভাড়ার জন্য চাপ দিয়ে নানা হয়রানি করছে এবং বাড়ি ছেড়ে দেওয়ার হুমকি দিচ্ছে। এটা অমানবিক, যা প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ অমান্য করার সামিল।।তারা বলেন, ৬ মাসের বাড়ি ও দোকান ভাড়া মওকুফ না করলে আগামী ৬ জুন বেলা সাড়ে ১১টা থেকে দেড়টা পর্যন্ত সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে অবস্থান ধর্মঘট পালন করা হবে। পাশাপাশি সিলেটের জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি দেওয়া হবে।ভাড়াটিয়া স্বার্থ-সংরক্ষণ পরিষদের সভাপতি অ্যাডভোকেট এমএ সালেহ চৌধুরী বলেন, আমরা মানবিকতা চাই।

এজন্য তিন দফা দাবি উত্থাপন করে তিনি বলেন, এই বৈশ্বয়িক মহামারি মোকাবিলায় দোকান এবং বাসাসহ সকল ভাড়া আগামী এক বছর পর্যন্ত ৫০% করা হোক, চলিত বছর এবং আগামী বছর সকল হোল্ডিং ট্যাক্স ও ট্রেড লাইসন্সে ফিসহ অন্যান্য প্রকার ট্যাক্স ৫০% মওকুফ করা হোক, গ্যাস বিল এবং বিদ্যুৎ বিলসহ সব ইউটিলিটি বিলের ৫০% মওকুফ করা হোক।এই পরিস্থিতি থেকে জনগণকে রেহাই দেওয়ার জন্যে গত মে থেকে আগামী অক্টোবর পর্যন্ত ভাড়াসহ বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস ও হোল্ডিং ট্যাক্স মওকুফ করার জন্য প্রধানমন্ত্রীর নির্বাহী আদেশ জারির দাবি জানানো হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর দেখুন