Logo

চট্রগ্রামে এই প্রথম মানবিক সাহায্য গ্রুপ কন্ট্রিবিউশন ফর বাংলাদেশ(কব)উদ্যোক্তা (নাইমা নিম্মি)

রিপোর্টার:
আপডেট : বুধবার, ৪ নভেম্বর, ২০২০

তুহিনঃ চট্রগ্রাম প্রতিনিধি।

মানবিক সাহায্য গ্রুপ কন্ট্রিবিউশন ফর বাংলাদেশ(কব), বাংলাদেশ চট্রগ্রাম বেসরকারী স্বেচ্ছাসেবী গ্রুপের মধ্যে নতুন ও একটি অন্যতম উন্নয়ন সংগঠন। চট্রগ্রাম প্রাইভেট স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষিকা নাইমা নিম্মি। ক‘জন সৃজনশীল তরুণ ও তরুণী কে নিয়ে প্রাকৃতিক দুর্যোগ করোনা কালীন পবিত্র রমজান মাসে মানুষের অসহায়ত্ব নিরসনে প্রাথমিক পর্যায়ে পুণর্বাসন কার্যক্রমের মাধ্যমে এই সংস্থাটির সূচনা করেন, অতঃপর এই কর্মসূচির সফল বাস্তবায়ন করতে এর নামকরণ করেন সাহায্য সংস্থা। পরবর্তীতে এটাকে মানবিক সাহায্য গ্রুপ কন্ট্রিবিউশন ফর বাংলাদেশ হিসাবে নামকরণ করা হয়। প্রতিষ্ঠার শুরু থেকে কন্ট্রিবিউশন ফর বাংলাদেশ বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কার্যক্রম বাস্তবায়ন করে আসছে। বর্তমানে মানবিক সাহায্য গ্রুপ জাতীয় পর্যায়ের হতদরিদ্র,ভূমিহীন, শ্রমজীবী, প্রান্তিক চাষী, ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী ও ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা তথা দেশের পশ্চাৎপদ মানুষের সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন, প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে সামাজিক ও অর্থনৈতিকভাবে ক্ষমতায়নের প্রক্রিয়ায় নিয়োজিত একটি প্রতিষ্ঠান।

এই প্রতিষ্ঠানের অন্যতম শর্ত হলো কর্মসংস্থান সৃষ্টি এবং মানবিক সাহায্য।


এই মানবিক সাহায্য গ্রুপ কন্ট্রিবিউশন ফর বাংলাদেশ(কব), প্রতিষ্ঠার উদ্যোক্তা নাইমা নিম্মি কে সাংবাদিকরা যখন পশ্ন করেন হঠাৎ করে এই মানব সেবা করার কারন আর আপনার পরিচয় কি এই পর্যন্ত কতজন কে সাহায্যদান করেছেন ? তিনি তার বক্তব্যর মধ্যে পরিচয় দিয়ে বলেন আমি চট্টগ্রাম সীতাকুণ্ড উপজেলার গোলাবাড়িয়া গ্রামের মেয়ে চট্টগ্রাম শহরে বেড়ে উঠা হয় বাসা :চাঁন্দগাও আবাসিক বি ব্লক,চট্টগ্রাম।স্কুল কলেজ পেরিয়ে চট্টগ্রাম কলেজ থেকে অর্থনীতিতে অনার্স মাস্টার্স করি।প্রাইভেট স্কুল এন্ড কলেজে শিক্ষকতার পাশাপাশি ছবি আঁকতে খুব পছন্দ করি।জেলা শিল্পকলা একাডেমি চট্টগ্রাম থেকে ৩ বছর মেয়াদী ডিগ্রি কোর্স কম্পলিট করি গতবছর।
৮ বছর হলো একটি নিজস্ব আর্ট স্কুল চালাচ্ছি।

ছোটবেলা থেকেই মানবসেবা করার চেষ্টা করছি।আমার প্রথম অনুপ্রেরণা আমার মা।আম্মুকে দেখেছি কখনও তিনি একটা ফকিরকেও না খাইয়ে বাসা থেকে বিদায় দিতেন না। আম্মু আমাকে বলেন গরীব অসহায় মানুষকে সাহায্য করে যে আনন্দ পাওয়া যাই তা অন্য কিছুতে পাবে না,ধীরে ধীরে মায়ের অনুপ্রেরনায় গরীব অসহায়দের পাশে দাঁড়ানো একটা দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ গড়া আমার স্বপ্ন হয়ে যায়।
কিন্তু, সবসময় চাইলেও ব্যক্তিগত উদ্যোগে দরিদ্র মানুষগুলোর পাশে দাঁড়ানো সম্ভব হয় না ।তাই সেই লক্ষ্যে যারা আমার মতো মানবিক কাজ করতে পছন্দ করে, মানুষের জন্য কাজ করে আনন্দ পায় তাদের খুঁজে বের করার লক্ষ্যে ফেইসবুক ভিত্তিক একটি মানবিক গ্রুপ করি ২৩ শে মে ২০২০ আমার এই ছোট্ট উদ্যোগের নাম Contribution for Bangladesh (COB)।
মানবিক গ্রুপটির নিয়ম হলো মেম্বারদের কাছ থেকে মাসে সর্বনিম্ন মাত্র ৫০ টাকা অনুদান নেওয়া হয় আর সর্বোচ্চ সম্পূর্ণ সদস্যদের ইচ্ছে।আলহামদুল্লিল্লাহ যথেষ্ট রেসপন্স পেয়েছি এবং বর্তমানে ৫০ জন কন্ট্রিবিউটর নিয়মিত অনুদান দিচ্ছেন।
সদস্যদের এই অনুদান সমূহ সরাসরি COB by dcf গ্রুপের নামে দরিদ্র চ্যারিটি ফাউন্ডেশনে জমা হয়।কিন্তু, মেম্বারদের একটাকা অনুদানও আমার কাছে অনেক মূল্যবান তাই সমস্থ তথ্য আমি নিজে রেকর্ড করি।আজ পর্যন্ত কে কতটাকা অনুদান দিয়েছে!কোন খাতে দিয়েছে কখন গ্রুপের ফান্ড থেকে সাহায্য করা হয়েছে সমস্থ তথ্য নামসহ রেকর্ড করা আছে।

ইতিমধ্যে গ্রুপের অনুদানে দরিদ্র চ্যারিটি ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছাসেবকদের সহায়তায় দেশের দুটি জেলা হবিগঞ্জ ও কুড়িগ্রামে বন্যার্তদের জন্য ত্রাণ পাঠানো হয়।
সিলেটের এক অসহায় পরিবারের মেয়েকে বিয়ের জন্য গ্রুপের অর্থায়নে বিশেষ উপহার পাঠানো হয়।
স্বাবলম্বী করার লক্ষ্যে এক দরিদ্র অসহায় মহিলাকে গ্রুপের অর্থায়নে চুলা ও ব্যবসা করতে প্রয়োজনীয় জিনিসের জন্য অর্থ সাহায্য দেওয়া হয় এবং ফরিদপুরের এই মহিলার দুঃসময়ে তাকে আর্থিক সহায়তা ছাড়াও ব্যবসায়িক যাবতীয় আইডিয়া সম্পূর্ণ আমার ত্বত্তাবধানে করা হয়।মানবিকতার খাতিরে এই নিয়ে ৪ জন মহিলাকে স্বাবলম্বী করি।কিন্তু আমার স্বপ্ন হাজার হাজার মহিলাকে স্বাবলম্বী করা।

এছাড়াও গ্রুপের অর্থায়নে এক মেধাবী ছেলের পড়াশুনার জন্য আর্থিক সাহায্যও করা হয়।পরবর্তী পদক্ষেপ আসছে শীতকালীন অসহায় পথের মানুষদের পাশে দাঁড়ানো।

একানে দরিদ্র চ্যারিটি ফাউন্ডেশন আমার একটি মাধ্যম।আর মাধ্যম যাইহোক, লক্ষ্য একটাই গরীব অসহায়দের পাশে দাঁড়ানো।মাসে সর্বনিম্ম মাত্র ৫০ টাকা অনুদান দেওয়া এইটা সম্পূর্ণ আগ্রহের ব্যাপার। এত কম টাকা নির্ধারণ করার কারণ যেন সবাই মানবিক কাজে অংশগ্রহণ করতে পারে।গত পাঁচ মাস ধরে গ্রুপটি সম্পূর্ণ আমি একা চালাচ্ছি।গ্রুপের সমস্ত পরিকল্পনা আমি একা নিজেই করছি।আর অামার অনুপ্রেরণা আমার গ্রুপের মেম্বাররা যারা আমাকে বিশ্বাস করে গরীবদের সাহায্য করতে মাসে মাসে অনুদান দিচ্ছেন।
এখন আমার চেষ্টা থাকবে এই সামাজিক সেবামূলক কর্মসূচী যেনো পুরা বাংলাদেশে পরিচালনা করতে পারি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর দেখুন